আজ বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
«» “একজন স্বেচ্ছাসেবী,নিয়মিত রক্তদাতা সাদিয়া ক্যান্সারে আক্রান্ত, আর্থিক ভাবে সকলেই এগিয়ে আসুন”  «» ইউনানী/হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার-ফার্মাসিস্ট সহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে বিশাল নিয়োগ «» ঢামেকে ব্রাদার ও মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের সংঘর্ষে আহত ২৫ «» আগামী সাতদিন খুবই চ্যালেঞ্জিং : স্বাস্থ্য অধিদপ্তর «» বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থোপেডিক হাসপাতাল নিটোরের গল্প «» শুকরের চর্বিতে উৎপাদিত তেলে আক্রান্ত হচ্ছে আমাদের হৃদপিণ্ড! «» প্রাকৃতিক উপায়ে এডিস মশা থেকে মুক্তির উপায় «» ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত নতুন রোগী প্রায় ২ হাজার «» স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই হয়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» এবার ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসক লাঞ্ছিত

মাশরাফি-কান্ড নিয়ে ফেসবুকে মন্তব্যের জেরে চিকিৎসক বদলি: তুমুল সমালোচনা বিশ্ব মিডিয়ায়

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কথিত হাসপাতাল অভিযান নিয়ে ফেসবুকে মন্তব্য করেছিলেন বাংলাদেশের একজন শীর্ষ চিকিৎসক ও সুবিদিত বিশেষজ্ঞ ডা. রেজাউল করিম। সে জন্য তাকে শাস্তিমূলক বদলি করা হয় চিকিৎসা-পরিবেশহীন হাসপাতালে।সেখানে ক্যান্সার চিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা নেই। তার অভাবে বৃহত্তর চট্টগ্রাম সহ দক্ষিণ পূর্ব বাংলাদেশের লাখ লাখ রোগী ক্ষতিগ্রস্থ হবেন। এই ঘটনা বিশ্ব মিডিয়া গুরুত্বসহকারে প্রকাশ করেছে।

আলোচিত ওই বদলির ঘটনা নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি ও ব্রিটেনের প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম গার্ডিয়ান, ভারতের দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ও সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় সংবাদ মাধ্যম আরব নিউজসহ বিশ্বের বিভিন্ন গণমাধ্যম।

এএফপির খবরে উল্লেখ করা হয়, বদলি হওয়া চিকিৎসক রেজাউল করিম একজন শিশু ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ। ফেসবুকে মাশরাফির সমালোচনার কয়েক সপ্তাহ পরে তাকে রাঙামাটিতে বদলি করা হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপি ওই চিকিৎসককে ফোন দিয়ে তার বক্তব্যও নেয়। এএফপিকে দেয়া সাক্ষাতকারে ডা. রেজাউল করিম বলেন, আমাকে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজে বদলি করা হয়েছে। কিন্তু সেখানে ক্যান্সার চিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা নেই। এটা আমার কাছে এক ধরনের অস্বাভাবিক প্রক্রিয়া বলে মনে হয়েছে।

বদলির আদেশে সই করা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহসিন উদ্দিন বলেন, এটা কেবল একটি প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত। এটাকে শাস্তি বলে তিনি মনে করেন না।

মাশরাফিকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় ক্রীড়াব্যক্তিত্ব ও জাতীয় সংসদের সদস্য উল্লেখ করা হয় প্রতিবেদনে। ওইদিন মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজ আসনের একটি সরকারি হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে বেশ কয়েকজন চিকিৎসকে অনুপস্থিত দেখতে পেয়ে ক্ষুব্ধ হন। পরবর্তী সময়ে এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বিতর্কের ঝড় ওঠে। তিনি চিকিৎসক নিয়ে মন্তব্য করেন , বলেন, ডাক্তার, আপনাকে নিয়ে এখন কি করতাম।

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে টেলিফোনে এক জ্যেষ্ঠ চিকিৎসককে ফোনে তিরস্কার দেখা গেছে নড়াইল এক্সপ্রেস নামে খ্যাত মাশরাফিকে।

রেজাউল করিম বলেন, ফেসবুকে মাশরাফিকে সমালোচনা করে পোস্ট দেয়ার পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নোটিশ পাওয়া ছয় চিকিৎসকের মধ্যে তিনি একজন। দুই মাস পরেই তাকে দুর্গম রাঙামাটিতে বদলি করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের যে ক্যান্সার হাসপাতাল থেকে তাকে হঠাৎ বদলির আদেশ হয়, সেটিতে শতাধিক রোগীর চিকিৎসা দিচ্ছিলেন তিনি। তার বদলি স্থানীয় গণমাধ্যমেও ফলাও করে প্রচার করা হয়েছে।

অবসরের পর খেলোয়াড়দের রাজনীতিতে যোগ দেয়া দক্ষিণ এশিয়ার পশ্চাদপদ দেশগুলোতে অস্বাভাবিক কোনো ঘটনা না। কিন্তু মাশরাফি এখনো খেলছেন। বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্রিকেটের অধিনায়ক তিনি। বিশ্বকাপের পরেও দলকে নেতৃত্ব দিতে পারেন এই পেসার।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :