আজ বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০২:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
«» “একজন স্বেচ্ছাসেবী,নিয়মিত রক্তদাতা সাদিয়া ক্যান্সারে আক্রান্ত, আর্থিক ভাবে সকলেই এগিয়ে আসুন”  «» ইউনানী/হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার-ফার্মাসিস্ট সহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে বিশাল নিয়োগ «» ঢামেকে ব্রাদার ও মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের সংঘর্ষে আহত ২৫ «» আগামী সাতদিন খুবই চ্যালেঞ্জিং : স্বাস্থ্য অধিদপ্তর «» বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থোপেডিক হাসপাতাল নিটোরের গল্প «» শুকরের চর্বিতে উৎপাদিত তেলে আক্রান্ত হচ্ছে আমাদের হৃদপিণ্ড! «» প্রাকৃতিক উপায়ে এডিস মশা থেকে মুক্তির উপায় «» ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত নতুন রোগী প্রায় ২ হাজার «» স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই হয়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» এবার ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসক লাঞ্ছিত

গ্রামের রোগীদের সেবা কি কেবল গ্রামেই হয়?

গ্রামের রোগীদের সেবা দিতে হবে বলে বিশেষায়িত ডাক্তারদেরকেও উপজেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। যেখানে হয়তো তার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কাজ করবার সুযোগই থাকেনা। তাহলে রাজধানীর বিশেষায়িত হাসপাতালে যে রোগীরা আসে তারা কি গ্রাম থেকে আসেনা? সেখানে সেবা দিলে কি গ্রামের রোগীদের সেবা হয়না? নাকি ঢাকায় এসে তারা সব শহুরে রোগী হয়ে যায়?

এই গ্রামের রোগীরাই কঠিন অসুখ হলে কলকাতা, মাদ্রাজ, ব্যাঙ্গালুরে যায়।

বিষয়টা গ্রাম বা শহরের না। বিষয়টা হওয়া উচিত হাসপাতালের লেভেলের। পাবলিক হেলথে প্রাইমারি থেকে টারশিয়ারি কেয়ার লেভেলের একটা পদ বিন্যাস করা আছে। সেগুলো বাদ দিয়ে আমরা নিজেদের মত গ্রাম শহর ভাগ করে কথা বলছি।

তাহলে প্রশ্ন আসে- বার্ন হসপিটালটা কেন ঢাকাতে? কেন বান্দরবনে হলোনা? বা কুড়িগ্রামে কেন জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতাল হলোনা? জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইন্সটিটিউটটা তো ভুরুঙ্গামারীতেও হতে পারত?

পদায়নে আসল নিয়ামক হলো ক্ষমতা ও যোগাযোগ। একজনের ক্ষমতা থাকলে, তদবির করবার মত যোগ্যতা থাকলে সে বিশেষজ্ঞ না হয়েও বা ধরুন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ হয়েও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে পদায়িত হতে পারেন।

আরেকজন প্লাস্টিক সার্জারিতে বিশেষজ্ঞ হয়েও “গ্রামের রোগীদের সেবা দিন” বলে উপজেলায় পদায়িত হতে পারেন। এরপর তিনি যদি ডিমোটিভেটেড হয়ে যান তাহলে সহজেই বলে দিতে পারবেন “ডাক্তাররা গ্রামে যায়না।” মূলত এভাবেই চলছে স্বাস্থ্যখাত।

ডা. গুলজার হোসেন উজ্জল

হেমাটোলজি বিশেষজ্ঞ।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :