আজ বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন

ডেঙ্গুতে প্রাণ গেল নার্সের!

জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (নিটোর) নার্স লর্না এলিজাবেথ মজুমদার। বুধবার দুপুরে রাজধানীর দারুস সালামে একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। গত চার দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত লর্না এলিজাবেথ। ডেঙ্গু পরীক্ষায় নেগেটিভ রেজাল্ট আসে। এ অবস্থায় ডেঙ্গু নাকি হাইপ্রো হয়ে তিনি মারা গেছেন তা নিশ্চিত হতে পারেননি চিকিৎসকরা। তারা বলেছেন, অনেক সময় আক্রান্তদের ডেঙ্গু পরীক্ষায় নেগেটিভও আসতে পারে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, কয়েক দিন জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন লর্না এলিজাবেথ। পরে নিজ কর্মস্থল নিটোরে নতুন করে খোলা ডেঙ্গু ইউনিটে তার পরীক্ষা করানো হয়। সেখানে নেগেটিভ আসে। তখন তার ডেঙ্গু হয়নি মনে করে বাড়িতে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত লর্না এলিজাবেথ। পরীক্ষায় নেগেটিভ আসায় সেভাবে গুরুত্ব দিয়ে ডাক্তারের শরণাপন্নও হননি।

এর মধ্যে আজ বুধবার (২১ আগস্ট) শারীরিক অবস্থার হঠাৎ অবনতি হলে মিরপুরের বাসা থেকে দারুসসালামে একটি ডায়াবেটিস হাসপাতালে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিটোরের প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সালাহউদ্দিনের বরাত দিয়ে সূত্র জানিয়েছে, অনেক সময় পরীক্ষায় ডেঙ্গুর সিম্পটম ধরা পড়ে না। এছাড়া কেউ কেউ আক্রান্ত হলেও অতটা অবনতি হয় না। স্বাভাবিক দেখা যায়। হঠাৎ করেই প্লেটলেট অনেক নিচে নেমে যায়। এ অবস্থায় তিনি হাইপ্রো নাকি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন—তা নিশ্চিত করা বলা যাচ্ছে না।

তার সহকর্মী হাসপাতালে সিনিয়র স্টাফ নার্স মীর আব্দুর রাজ্জাক মেডিভয়েসকে বলেন, ‘তিনি একজন ভদ্র মানুষ। এ ঘটনা নিয়ে ফেসবুকে সবার কাছে দোয়াও চেয়েছেন।’

লর্না এলিজাবেথ মজুমদারের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায়। সেখানেই তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

রাজধানীর মহাখালীর কলেজ অব নার্সিং থেকে বিএসসি নার্সিং করেন তিনি। ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিতা লর্না স্বামীসহ রাজধানীর মিরপুরে বসবাস করছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :