আজ বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৫:২৮ অপরাহ্ন

চালু হলো ‘লাইভ ব্লাড ব্যাংক’

চালু হলো জরুরি প্রয়োজনে রক্তদাতা ও রক্তগ্রহীতার মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনে তৈরি স্মার্টফোনভিত্তিক অ্যাপ ‘লাইভ ব্লাড ব্যাংক’। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের উদ্যোগে এবং আইসিটি বিভাগের সার্বিক সহযোগিতায় তৈরি হয় অ্যাপটি।

বুধবার (০৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাপটির উদ্বোধন করা হয়। প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এর উদ্বোধন করেন। এসময় আইসিটি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানীসহ আইসিটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পলক বলেন, শুধু ভাষা আন্দোলন বা স্বাধীনতা আন্দোলন নয় বরং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ২১ বছরের আন্দোলনেও নেতৃত্ব দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বাংলাদেশে যখনই কোনো দুর্যোগ হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মীরা সবার আগে তা বুকে পেতে নিয়েছে। ছাত্রলীগের নেতৃত্বেই বাংলাদেশকে গ্রিন, ক্লিন এবং সেফ বাংলাদেশে পরিণত করা হবে।

ছাত্রলীগ কর্মীদের প্রতি লাইভ ব্লাড ব্যাংক অ্যাপটিকে সফল করার আহ্বান জানিয়ে পলক বলেন, ছাত্রলীগই লাইভ ব্লাড ব্যাংক অ্যাপ সফল করবে। মানবতার সেবায় আমাদের সবার রক্ত দেওয়া উচিত। রক্তদাতা এবং রক্তগ্রহীতার মধ্যে এই প্ল্যাটফর্ম একটি সেতু। আমরা সেই সেতুবন্ধন তৈরি করে ছাত্রলীগের কাছে হস্তান্তর করলাম।

এসময় অ্যাপটির সম্পর্কে জানানো হয়, জরুরি প্রয়োজনে রক্তদাতা ও গ্রহীতার জন্য একটি দ্রুত, সহজ ও নিরাপদ প্ল্যাটফর্ম তৈরির উদ্দেশ্যে নিয়ে এটি তৈরি করা হয়। অ্যাপটির সার্বিক পরিচালনা করবে ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

অ্যাপটির কার্যক্রম সম্পর্কে বলা হয়, এতে একজন ব্যক্তি রক্তদাতা হিসেবে নিবন্ধন করতে পারবেন। অন্যদিকে রক্তগ্রহীতা রক্তের জন্য অনুরোধ জানাতে পারবেন। কেউ রক্ত চেয়ে অনুরোধ পাঠালে কাঙ্ক্ষিত রক্তের গ্রুপ হিসেবে গ্রহীতার কাছাকাঠি রক্তদাতার অ্যাপে একটি বার্তা পৌঁছাবে। রক্তদাতা চাইলে তখন অনুরোধ গ্রহণ করে রক্তদান করতে পারবেন। অ্যাপ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এর ফলে রক্তদাতা এবং রক্তগ্রহীতা একে অপরকে দ্রুত খুঁজে পাবেন।

এছাড়াও ডোনার ম্যাপ, ব্লাড ডোনার ম্যাপ, কাছাকাছি ব্লাড ব্যাংকসহ বিভিন্ন ফিচারস আছে এতে। বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম পরিদর্শনে থাকছে একটি নিউজ ফিড।

আইসিটি বিভাগ থেকে জানানো হয়, অ্যাপটির বেটা ভার্সন এরইমধ্যে প্লেস্টোরে পাঁচ হাজারের বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে। এদের মধ্যে প্রায় চার হাজার ব্যক্তি স্বেচ্ছায় রক্তদানে ইচ্ছুক হিসেবে নিবন্ধন করেন। এরইমধ্যে এক হাজার ২৫০ বার এই অ্যাপে রক্ত চেয়ে অনুরোধ করা হয়েছে। পাঁচশবারের বেশি রক্ত দেওয়া হয়েছে।

আইওএস প্ল্যাটফর্মে এখনও অ্যাপটি পাওয়া না গেলেও গুগল প্লেস্টোর (http://bit.ly/livebloodbank) থেকে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিংয়ের স্মার্টফোনের জন্য ডাউনলোড করা যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :