আজ বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৫:২৮ অপরাহ্ন

বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপী পরিষদের ‘‘র‌্যালি ও আলোচনা অনুষ্ঠান’’

বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপী পরিষদ এর শুভেচ্ছা নিবেন। বঙ্গবন্ধু পরিষদের অনুমোদিত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাতির পিতার আদর্শে উজ্জিবিত ফিজিওথেরাপি পেশাজীবীগণের একমাত্র রাজনৈতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপী পরিষদ। স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর উদ্যোগে ১৯৭২ সালে বাংলাদেশে থেরাপি ও পুনর্বাসন শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবা চালু হয়েছিল।

এমতাবস্থায় আজ ৮ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপী পরিষদেও আয়োজনে ও স্টেট কলেজ অব হেলথ সাইন্সেস এর সার্বিক সহযোগীতায় সকাল ৯ ঘটিকায় একটি বিশেষ র‌্যালি (শাহবাগ থেকে টিএসসি হয়ে শাহবাগ পাবলিক লাইব্রেরী) অনুষ্ঠিত হয় এবং শাহবাগ পাবলিক লাইব্রেরী অডিটোরিয়ামে আলোচনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৫১ সালে প্রথম বিশ্বব্যাপী ফিজিওথেরাপি দিবস উদযাপন শুরু হয়। চিকিৎসা ব্যবস্থায় ফিজিওথেরাপি’র গুরুত্ব সাধারণ মানুষের মাঝে পৌঁছানোর লক্ষ্যে বাংলাদেশে দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে। এ বছরে দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় ”দীর্ঘ মেয়াদী ব্যথা নিরাময়ে ফিজিওথেরাপি কার্যকর চিকিৎসা”।

বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদের ব্যানারে র‌্যালি ও আলোচনা অনুষ্ঠানে ২৫০ এর অধিক ফিজিওথেরাপি চিকিৎসক ও বিভিন্ন ফিজিওথেরাপি কলেজের শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশগ্রহণ করে। বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ সৈয়দ শামীম আহসান (পিটি),আশা চৌধুরী ও প্রদীপ চন্দ্র দাস,প্রচার সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির, সাধারণ সম্পাদক, ডাঃ মোঃ মিজানুর রহমান (পিটি, প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ড. আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিকী, সাবেক উপাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ড: মো: আনোয়ার হোসেন, ডীন, ফ্যাকাল্টি অফ পাবলিক হেলথ,বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সাইন্সেস,ঢাকা, বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি, সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ ইব্রাহিম খলিল (পিটি) এবং সভাপতিত্ব করেন ও বিশেষ বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদের সভাপতি ডাঃ মোঃ আকতার হোসেন (পিটি), সভাপতি, বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি পরিষদ,কেন্দ্রীয় কমিটি।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন আমাদের মধ্যে অনেকেই দীঘদিন যাবৎ শরীরের বিভিন্ন অংশের ব্যথা বেদনার ভুগে থাকেন। বিশেষ করে ঘাড় ব্যথা, কোমর ব্যথা, হাঁটু ব্যথা, সোল্ডার জয়েন্টে ব্যথা, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য দীর্ঘমেয়াদি এই ব্যথা বেদনার বিভিন্ন ধরনের কারণ রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম কারণ ডিজেনারেটিভ জিজিজ বা বয়সজনিত হাড় ক্ষয়ের কারণে ব্যথা। যেমন – সারভাইক্যাল ¯পন্ডাইলোসিস, লাম্বার ¯পন্ডাইলোসিস, অস্টিওআর্থ্রাইটিস ইত্যাদি। তাছাড়া আরো কিছু কারণ রয়েছে যেমন – রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস, অ্যানকাইলোজিং ¯পন্ডাইলোইটিস বা ¯পন্ডাইলো আর্থ্রোপ্যাথি ইত্যাদি।

উপরোক্ত ডিজিজ বা রোগগুলো দীর্ঘমেয়াদি রোগ যেমন- ¯পন্ডাইলোসিস বা অস্টিওআর্থ্রাইটিস হলো বয়সজনিত হাড়ের ক্ষয় রোগ। অতএব, এটাকে স¤পূর্ণ নিরাময় করা সম্ভব নয়। তবে চিকিৎসার মাধ্যমে রোগীর কষ্ট কমানো সম্ভব। পাশাপাশি কিছু নিয়ম মেনে চললে ও চিকিৎসকের নির্দেশিত কিছু ব্যায়াম করলে রোগী ভালো থাকবেন। তেমনিভাবে রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস ও অ্যানকাইলোজিং ¯পন্ডাইলোটিস রোগ দুটিও একেবারে নিরাময়যোগ্য রোগ নয়।

এ ক্ষোত্রেও রোগীকে কিছু ওষুধ সেবনের পাশাপাশি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ও নির্দিষ্ট কিছ থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ করতে হবে। এই রোগগুলো যেহেতু দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসার প্রয়োজন পড়ে তাই এর চিকিৎসার ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ব্যথানাশক ওষুধ সেবন করা যাবে না। কারণ দীর্ঘদিন ব্যথানাশক ওষুধ সেবনের ফলে বিভিন্ন ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে, তাই এই ধরনের রোগীদের চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা খুবই উপকারী ও পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়াবিহীন একটি চিকিৎসা পদ্ধতি, তবে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নেওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকের তত্বাবধায়নে চিকিৎসা নিতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :