আজ শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146
«» ইরেকটাইল ডিসফাংশন এর বৈপ্লবিক চিকিৎসা «» ট্রাফিক আইন কার্যকর করতে বদলগাছী থানা পুলিশের লিফলেট বিতরণ «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখায় মাদক নির্মূল কমিটি গঠন «» উৎসর্গ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বরগুনায় শুকনো খাবার বিতরণ !!  «» বরিশাল ‘আই এইচ টি’তে জেলহত্যা দিবসে অধ্যক্ষের উপস্থিতিতে ডিজে পার্টি! «» ভারতের চেয়ে আমাদের স্বাস্থ্যখাত বেশি উন্নত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» বিনা মূল্যের ওষুধ বিক্রি, ফার্মেসি মালিককে জরিমানা «» মাতৃমৃত্যু কমাতে হলে সিজারের সংখ্যাও কমাতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» মাতৃস্বাস্থ্যে বিশেষ অবদানস্বরূপ ৩ মেডিকেল কলেজকে বিশেষ সম্মাননা «» কিংবদন্তি চিকিৎসক এম আর খানের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

রোগী দেখা রেখে ফিটনেস সার্টিফিকেট না দেয়ায় চিকিৎসক লাঞ্ছিত

নাটোরে রোগী দেখা রেখে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য ফিটনেস সার্টিফিকেট না দেয়ায় দুই চিকিৎসককে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। ভুক্তভোগী চিকিৎসকদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের লোকজন তাদেরকে লাঞ্ছিত করেছে। তবে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে তাদের কেউ এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয় বলে দাবি করা হয়েছে।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) নাটোরের বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। দেশের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা দৈনিক যুগান্তর এ খবর প্রকাশ করেছে।

হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার আবদুল্লাহ মোহাম্মদ ও ডা. রাসেল জানান, ছাত্রলীগের পরিচয় দিয়ে একজন যুবক রোববার দুপুর ২টার দিকে ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করার জন্য ফিটনেস সার্টিফিকেট নিতে হাসপাতালে ডা. রাসেলের কাছে আসেন। সে সময় ডা. রাসেল ১৭নং কক্ষে বহির্বিভাগের রোগী দেখছিলেন। তখন রোগীর চাপ বেশি থাকায় ওই যুবককে বিকাল ৩টার পরে আসতে বললে সে হাসপাতাল থেকে বেড়িয়ে যান। এর কিছুক্ষণ পরেই ১৫-১৬ জনের একটি দল নিয়ে হাসপাতালে ঢুকে যুবকরা নিজেদের ছাত্রলীগ পরিচয় দিয়ে চিকিৎসকরা ফিটনেস সার্টিফিকেট নিতে কেন টাকা চেয়েছেন এমন জানতে চান। সে সময় ডা. আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ এবং ডা. রাসেল একই কক্ষে ছিলেন।

চিকিৎসক কোনো টাকা চাননি দাবি করলে বিষয়টি নিয়ে চিকিৎসকদের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এ সময় যুবকদের কয়েকজন এসব কথপোকথন ভিডিও করতে থাকেন। উল্টো চিকিৎসক আবদুল্লাহ মোহাম্মদও ভিডিও করতে থাকলে তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া হয়।

সেসময় পুলিশ ডাকতে চাইলে আবাসিক চিকিৎসক ডা. রাসেলের কাছে থাকা সরকারি ও ব্যক্তিগত দুটি মোবাইল ফোনও তারা কেড়ে নিয়ে বাইরে চলে যায়। এক পর্যায়ে তাদের হাতে আঘাতপ্রাপ্ত হন ডা. রাসেল।

বিষয়টি তাৎক্ষণিক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলামকে মৌখিক ও পরে লিখিতভাবে জানান। এ ছাড়াও তারা বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশনকেও জানিয়েছেন বলে জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগের উপজেলা সভাপতি-সেক্রেটারিসহ অনেককেই দেখেছি। তারা আমাকে জানিয়েছে, টাকার বিনিময়ে সার্টিফিকেট দিয়েছে। তিনি জানান, তার হাসপাতালে চিকিৎসকদের ১৪টি পদের মধ্যে তিনিসহ মাত্র ৩ জন চিকিৎসক রয়েছেন। আমাদের হাসপাতালে নামে রয়েছে ৭জন।

তিনি বলেন, মাঝেমধ্যে মৌখিকভাবে সিভিল সার্জনসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও বিষয়গুলি জানানো হয়েছে। দুপুরে ছাত্রলীগের ছেলেগুলোর সঙ্গে চিকিৎসকদের যে ঘটনাটি ঘটে তা তিনি তৎক্ষনাৎ তার অফিসে বসিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে মীমাংসা করে দিয়েছি।

এ ব্যাপারে এমপি শহীদুল ইসলাম বকুল সমর্থিত উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মোল্লা জানান, এমন ঘটনা তিনি শুনেছেন তবে এসবের সঙ্গে তাদের কোনো সর্ম্পক নেই।

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) স্বপন কুমার চৌধুরী বলেন, হাসপাতাল থেকে এমন কোনো অভিযোগ তারা পাননি। তবে যে কোনো বিষয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানালে তাৎক্ষণিকভাবে তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :