আজ মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন

বিভাগীয় শহরে হচ্ছে ক্যান্সার হাসপাতাল

বিভাগীয় শহরে ক্যান্সার হাসপাতাল স্থাপনসহ আটটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৮ হাজার ৯৬৮ কোটি ৮ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেকের সভায় এসব প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, একনেক সভায় মোট আটটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম ‘বিভাগীয় শহরে ক্যান্সার হাসপাতাল স্থাপন’। এটি একটি ভালো প্রকল্প। খাবারসহ নানা কারণে ক্যান্সার রোগ বাড়ছে। তাই, এর চিকিৎসা সেবা বৃদ্ধি জরুরি।

মন্ত্রী জানান, এই ৮টি (নতুন ও সংশোধীত) প্রকল্পে সরকারি অর্থায়ন করা হবে ৮ হাজার ৯৫২ কোটি ৫৯ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে ব্যয় করা হবে ১৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, প্রকল্পে বিভিন্ন পণ্যের অস্বাভাবিক দামের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আনেন তিনি। তখন প্রধানমন্ত্রী পণ্যের দাম নির্ধারণে আরও সতর্ক হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

নির্দেশনার বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেছেন, বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন আইটেম থাকে, পণ্যের দাম থাকে, সেগুলোর দাম আরও সাবধানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে। তাড়াহুড়া করে, দ্রুত কাজ করতে গিয়ে সেগুলো ভালোভাবে খতিয়ে দেখা হয়। সেগুলোর মূল্য ভালোভাবে খতিয়ে দেখতে হবে।

সূত্রে জানা গেছে, বিভাগীয় মেডিকেল কলেজে দুইতলা বেইজমেন্ট ও ১৫তলা ফাউন্ডেশনসহ মোট ১৭তলা ভবন নির্মাণ করা হবে। চিকিৎসা ও শল্য চিকিৎসার সরঞ্জামাদি সংগ্রহ করে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, রংপুর, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেটে এমজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপন করা হবে। ক্যান্সার নির্ণয় ও এর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা হবে। ক্যান্সার চিকিৎসায় বৈদেশিক নির্ভরতা কমিয়ে আনা হবে।

অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো ময়মনসিংহ (রঘুরামপুর)-ফুলপুর-নকলা-শেরপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়ন, রাজশাহী-নওহাটা-চৌমাসিয়া সড়কের বিন্দুর মোড় থেকে বিমানবন্দর হয়ে নওহাটা ব্রিজ পর্যন্ত পেভমেন্ট চারলেনে উন্নীতকরণ, রাজশাহী মহানগরীর উপশহর মোড় থেকে সোনাদিঘী মোড় এবং মালোপাড়া মোড় থেকে সাগরপাড়া মোড় পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন। এছাড়া জুনোসিস ও আন্তঃসীমান্তীয় প্রাণিরোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ গবেষণা, স্ট্রেনথিং মনিটরিং অ্যান্ড ইভাল্যুয়েশন ক্যাপাবিলিটিজ অব আইএমইডি (এসএমইসিআই), ভারতের ঝাড়খণ্ড থেকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ আমদানির লক্ষ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার রহনপুর থেকে মনাকষা সীমান্ত পর্যন্ত ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন নির্মাণ প্রকল্পও রয়েছে।

এছাড়া চার হাজার ৮২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘আশ্রয়ন-২ শীর্ষক’ প্রকল্প সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সভায় আরও অংশ নেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :