আজ মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন

বিশ্বের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক ১০০ নেতার অন্যতম সায়মা ওয়াজেদ

বিশ্বের তালিকাভূক্ত মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক উদ্ভাবনী ১০০ নারী নেত্রীর মধ্যে অন্যতম অবস্থান কর নিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল এডভাইজরি কমিটি ফর অটিজম এন্ড নিউরো ডেভেলাপমেন্ট ডিসঅর্ডারসের চেয়ারপার্সন ও প্রধানমন্ত্রী কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল। খবর বাসস।

সম্প্রতি নিউ ইয়র্কের কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটিভিত্তিক ‘গ্লোবাল মেন্টাল হেলথ প্রোগ্রামস কনসোর্টিয়ামের’ চেয়ার ড. ক্যাথলিন পাইক ‘ফাইভ অন ফ্রাইডে’ শিরোনামে ব্লগে ওই তালিকা তুলে ধরেছেন। তালিকায় যে সব নারী ব্যক্তি উদ্যোগ ও সম্মিলিতভাবে মানসিক অসূস্থতা সম্পর্কিত সচেতনতা, প্রতিরোধ ও চিকিৎসা উন্নয়নে কাজ করেছে, তাদের নাম অক্ষরক্রমানুসারে লিপিবদ্ধ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক এক্সপার্ট এডভাইজরি প্যানেলের সদস্য। বাংলাদেশে অটিজম আক্রান্ত ব্যক্তিদের মুখপাত্র হিসেবে বিশেষ ভ’মিকা রাখায় সম্প্রতি তিনি ডব্লিউএইচও-এর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া আঞ্চলিক অটিজম বিষয়ক শুভেচ্ছাদুত নিযুক্ত হয়েছেন। তিনি তার নিজস্ব এনজিও সূচনা ফাউন্ডেশন-এর চেয়ারপারসন । ফাউন্ডেশনটি একটি ঢাকা ভিত্তিক অলাভজনক অ্যাডভোকেসি, রিসার্চ ও সক্ষমতা উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও তিনি সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)-এর একজন ট্রাস্টি। সিআরআই হচ্ছে বর্তমান সরকারের একটি গবেষণা শাখা। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বীকৃতিপ্রাপ্ত স্কুল সাইকোলজি বিশেষজ্ঞ।

সিআরআই এর ফেসবুক পোস্ট আজ জানিয়েছে, তিনি ফ্লোরিডার ব্যারি ইউনিভার্সিটি থেকে গ্রাজুয়েশন করেছেন। তিনি মানসিক বৈকল্য ও মানসিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং একজন প্রতিষ্ঠিত মুখপাত্র, যিনি আন্তর্জাতিক সচেতনতা সৃষ্টি, নীতি ও কর্মসূচি প্রণয়নে ভূমিকা রেখে চলেছেন। এছাড়াও তিনি জাতিসংঘ এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তিনটি আন্তর্জাতিক সুপারিশমালা গ্রহণেও জড়িত আছেন।

সায়মা ওয়াজেদ শারীরিক অক্ষমতাসম্পন্ন ব্যক্তিদের বিষয়ে সামাজিক বাধাসমূহ অতিক্রম করে মানসিক স্বাস্থ্য ইস্যুগুলো মূলধারায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে কৃতিত্ব রেখে যাচ্ছেন।

বঙ্গবন্ধুর নাতনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা পুতুল বাংলাদেশে অটিজমসহ মানসিক স্বাস্থ্য সেবার প্রসারে নিয়োজিত। তিনি অটিজম বিষয়ক বাংলাদেশের জাতীয় উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি। ২০১৭ সালে ডব্লিউএইচও তাকে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ‘শুভেচ্ছা দূত’ নিয়োগ দেয়। স্কুল সাইকোলজিস্ট হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে সনদপ্রাপ্ত সায়মাকে এর আগে এ অঞ্চলের জন্য অটিজম বিষয়ক চ্যাম্পিয়ন নিয়োগ দেয় ডব্লিউএইচও। তার উদ্যোগেই ২০১১ সালে ঢাকায় প্রথমবারের মতো অটিজম বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :