আজ শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146

Notice: Undefined variable: bnews_options in /home1/medinewsbd/public_html/wp-content/themes/Medinews Theme/header.php on line 146
«» ইরেকটাইল ডিসফাংশন এর বৈপ্লবিক চিকিৎসা «» ট্রাফিক আইন কার্যকর করতে বদলগাছী থানা পুলিশের লিফলেট বিতরণ «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখায় মাদক নির্মূল কমিটি গঠন «» উৎসর্গ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বরগুনায় শুকনো খাবার বিতরণ !!  «» বরিশাল ‘আই এইচ টি’তে জেলহত্যা দিবসে অধ্যক্ষের উপস্থিতিতে ডিজে পার্টি! «» ভারতের চেয়ে আমাদের স্বাস্থ্যখাত বেশি উন্নত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» বিনা মূল্যের ওষুধ বিক্রি, ফার্মেসি মালিককে জরিমানা «» মাতৃমৃত্যু কমাতে হলে সিজারের সংখ্যাও কমাতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী «» মাতৃস্বাস্থ্যে বিশেষ অবদানস্বরূপ ৩ মেডিকেল কলেজকে বিশেষ সম্মাননা «» কিংবদন্তি চিকিৎসক এম আর খানের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

ডা. শাহ আলম হত্যা মামলায় আরও ২ আসামি গ্রেপ্তার

সৌদি আরবের মদিনা হাসপাতালে শিশু বিভাগের সাবেক প্রধান ও ‘গরীবের ডাক্তার’ খ্যাত চাঞ্চল্যকর ডা. শাহ আলম হত্যা মামলায় আরও ২ আসামিকে গ্রেপ্তার গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত দুজন হলেন মো. সালাউদ্দিন (২৪) এবং মো. টিটু (২৫)। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তিন আসামি গ্রেপ্তার ও একজন বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

শনিবার (২ নভেম্বর) ভোরে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানার টাইগারপাস এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১১ জনের ডাকাতদলকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ডা. শাহ আলম হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার এই ২ ডাকাত।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, তাদের সম্পর্কে আরও তদন্ত করলে জানা যায়, ১১ জনের এই ডাকাতদলের নেতা মো. সালাউদ্দিন এবং মো. টিটু চিকিৎসক শাহ আলম হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত। প্রথমে এসব ডাকাতের বিরুদ্ধে মিরসরাই ও আকবর শাহ থানায় বেশ কয়েকটি মামলার কথা জানা গেলেও আরও খোঁজ নিয়ে চিকিৎসক হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়টি বেরিয়ে এসেছে।

জানা গেছে, আন্তঃজেলা ডাকাতদলের ১১ সদস্যের রয়েছে নিজস্ব গাড়ি, এমনকি ট্রাকও। সেটা ব্যবহার করেই ডাকাতি করে ওরা। ভোরে চট্টগ্রাম নগরে আসা বাস-ট্রেনের যাত্রীরাই তাদের মূল টার্গেট। যাত্রীদের অনুসরণ করে নির্জন জায়গা বুঝে অস্ত্র ও ছুরি ঠেকিয়ে মোবাইল-টাকা ছাড়াও নিয়ে নেয় সঙ্গে থাকা পাসপোর্টসহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র। এ ঘটনা শুধু চট্টগ্রাম নগরীতেই নয়, সীতাকুণ্ড ও মিরসরাই উপজেলা, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, ফেনী, কুমিল্লা, লাকসাম ও নোয়াখালী পর্যন্ত ছিল অপতৎপরতা।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা জানায়, তারা গাড়ি নিয়ে মহাসড়কে ঘুরতো। চলন্ত বাস দাঁড় করিয়ে ডাকাতি করতো। সড়কের পাশে যেসব দোকানের শাটার বা ঘরের তালা ভাঙতে পারবে বলে মনে হত গভীর রাতে সেগুলো ভেঙে ডাকাতি করত।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার রাতে কর্মস্থল সীতাকুণ্ড থেকে নগরের চান্দগাঁও এলাকার বাসায় ফিরতে একটি লেগুনায় উঠেন সৌদি আরবের মদিনা ফেরৎ চিকিৎসক ডা. শাহ আলম। ওই লেগুনায় আগে থেকেই দুজন ছিনতাইকারী ছিলেন। লেগুনাটি কিছুদূর অগ্রসর হওয়ার পর আরও দুজন ছিনতাইকারী লেগুনায় উঠেন। লেগুনা আরও কিছুদূর অগ্রসর হওয়ার পর চার ছিনতাইকারী মিলে ডা. শাহ আলমগীরকে যা আছে তা বের করে দিতে বলেন। এতে রাজি না হওয়ায় তাকে ছরিকাঘাতে খুন করেন ছিনতাইকারীরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :