আজ সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন,

ভ্রূণের অস্ত্রোপচারের পর মাতৃগর্ভে পুনর্স্থাপন!

ভ্রুণে সমস্যা দেখা দেওয়ায় গর্ভ থেকে বের করে অস্ত্রোপচারের পর আবারো মায়ের গর্ভেই রেখে দেয়া হয় ভ্রুণটিকে। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের এসেক্সে সফল এই অস্ত্রোপচার হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের এসেক্সের বিথান সিম্পসনের গর্ভে থাকা ভ্রূণের বয়স যখন ২০ সপ্তাহ, তখন পরীক্ষায় ধরা পড়ে ওই ভ্রুণের মস্তিষ্কের গঠন ঠিকমতো হচ্ছে না। এরপরই গর্ভবতী বিথানকে ইংল্যান্ডের এসেক্সের ব্রুমফিল্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, গর্ভস্থ ভ্রূণটি ‘স্পাইনা বিফিডা’ নামে এক জটিল স্নায়ুরোগে আক্রান্ত। ভ্রূণের স্নায়ুনালি (নিউরাল টিউব) থেকে ভবিষ্যতে সুষুম্নাকাণ্ড (স্পাইনাল কর্ড) এবং মস্তিষ্ক তৈরি হয়। এই স্পাইনা বিফিডা থাকার কারণে মানবদেহে স্নায়ুনালির গঠনে সমস্যা দেখা দেয়। ফলে সুষুম্নাকাণ্ড ও মস্তিষ্কের বৃদ্ধিও যথাযথ হয় না। এ কারণে জন্মগ্রহণের পর ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রে পঙ্গু হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তাই ব্রুমফিল্ড হাসপাতালের চিকিৎসকরা সিম্পসন দম্পতিকে জানান, হয় ভ্রূণটিকে নষ্ট করে ফেলতে হবে, নয়তো গর্ভস্থ ভ্রূণের ওই স্নায়ুনালির অস্ত্রোপচার করতে হবে।

বিথান গর্ভস্থ সন্তান নষ্ট করতে চাননি। তিনি বলেন, যখন জানলাম, ওকে বাঁচিয়ে রাখার উপায় রয়েছে, আমরা অস্ত্রোপচারেই রাজি হয়ে গেলাম।’

ভ্রূণের বয়স যখন ২৪ সপ্তাহ, তখন লন্ডনের গ্রেট অরমন্ড স্ট্রিট হাসপাতালে ভর্তি হন বিথান। চিকিৎসক মাইকেল বেলফোর্ডের তত্ত্বাবধানে ব্রিটেন এবং বেলজিয়ামের একদল সার্জন এই অস্ত্রোপচার করেন।তারা বিথানের গর্ভ থেকে ভ্রূণটিকে বের করে নিয়ে আসেন। পরে সেটিকে কৃত্রিমভাবে বাঁচিয়ে রেখে অস্ত্রোপচার হয়। অস্ত্রোপচারের পর আবার বিথানের গর্ভে স্থাপন করা হয় সেই কন্যাভ্রূণটিকে।

আরও পড়ুন :  ১৩ বছর ধরে দূষিত দুধ খাচ্ছে শিশুরা!

অস্ত্রোপচারে ঝুঁকির বিষয়ে অবগত ছিলেন উল্লেখ করে বিথান বলেন, কিন্তু সন্তানকে স্বাভাবিক জীবন দিতে ঝুঁকিটা নিয়েছিলেন তিনি।

বর্তমানে গর্ভস্থ ভ্রূণের বয়স ৮ মাস। বিথান জানান, ‘আমার পেটের ভেতরে ও ক্রমাগত লাথি মেরে চলেছে। একটা ইতিহাস সৃষ্টি করতে চলেছে ও।’

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে ব্রুমফিল্ড হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, এ ধরণের অস্ত্রোপচারের ৮০% ক্ষেত্রেই গর্ভস্থ ভ্রূণটি বাঁচানো সম্ভব হয় না। বিথান ব্রিটেনের চতুর্থ মা, যার গর্ভস্থ ভ্রূণের এই অস্ত্রোপচার হয়েছে। আগামী এপ্রিলেই বিথান ওই শিশুকন্যার জন্ম দেবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন :

আরও পড়ুন :

সংবাদটি শেয়ার করুন :