আজ শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:৩১ পূর্বাহ্ন

অসুখ-বিসুখ তো আর সরকারি ছুটির দিন বুঝে না!

‘হাসপাতাল থাইক্যা বাইর কইরা দিয়েন না। অসুস্থ স্বামীডার ব্যথা বেদনায় চিৎকার কান্নাকাটি শুইন্যা লাকসাম থাইক্যা অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া কইরা লইয়া আইছি। ঢাকা শহরে আমাগো কেউ নাই। এহন বাইর কইরা দিলে যামু কই। দয়া কইরা, এহানে মাটিতেই কাইল পর্যন্ত পইড়া থাকতে দেন।’

রোববার সকাল পৌনে ১০টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কেবিন ব্লকের সামনে আউডোর সংলগ্ন রাস্তায় মাদুর বিছিয়ে এক রোগীকে শুয়ে থাকতে দেখে নিরাপত্তারক্ষীরা সেখান থেকে চলে বললে রোগীর স্ত্রী করজোড়ে এমনভাবে আকুতি জানাচ্ছিলেন।

নিরাপাত্তারক্ষীরা বার বার বলছিলেন, আজ সরকারি ছুটি। আজ চলে যান- কাল হাসপাতাল খোলা, কালকে আসেন। এ কথা শুনে রোগীর স্ত্রী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বললেন, ‘অসুখ বিসুখ তো আর সরকারি ছুটির দিন বুঝে না।’

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে রোগী লুৎফুর রহমানের স্ত্রী জানান, তার স্বামী তিন বছর আগে সৌদি আরব যান। সেখানে গিয়ে বছর দুয়েক ভালো থাকলেও গত বছর অনেক টাকা খরচ করে আকামা নবায়ন না করতে পারায় চাকরি অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। লুকিয়ে চুরি করে কাজ করলেও বেতনের টাকা কখনও পেয়েছেন কখনও পাননি। ফলে খেয়ে না খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এক পর্য়ায়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে দুমাস পর দেশে ফিরে আসেন।

লুৎফর রহমান জানান, তার শরীর ক্রমশ শুকিয়ে যাচ্ছে। লাকসামে ডাক্তার দেখালে তারা দ্রুত বিএসএসএমইউ-তে আসার পরামর্শ দেন। কিন্ত আজ নববর্ষ উপলক্ষে যে সরকারি ছুটি তা জানতেন না।

আরও পড়ুন :  মির্জা ফখরুল হাসপাতালে ভর্তি

 

 

হাসপাতাল থেকে তাকে যেন বের করে না দেয়া হয় সেজন্য এ প্রতিবেদককে নিরাপত্তারক্ষীকে বুঝিয়ে বলার অনুরোধ জানান তিনি।

লুৎফুর রহমানের অদূরেই আরেক তরুণী বৃদ্ধা মাকে আত্রাই থেকে নিয়ে এসেছেন। তার মায়ের মাথায় সমস্যা। আজ যে সরকারি ছুটি হাসপাতাল বন্ধ থাকবে তা তার জানা ছিল না।

বিএসএমএমইউ সূত্রে জানা গেছে- আজ হাসপাতালে সাধারণ সরকারি ছুটি চলছে। ফলে আউটডোর বন্ধ।

দেশের একমাত্র মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় সরকারি ছুটির দিনে জরুরি চিকিৎসাসেবা প্রদান না করার ব্যাপারে জানতে চাইলে হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডাক্তার নাজমুল করিম মানিক বলেন, ‘বিএসএমএমইউ হাসপাতালে এখনো জেনারেল ইমার্জেন্সি চালু হয়নি। তবে ছুটির দিনসহ বছরের ৩৬৫ দিনই অর্থোপেডিক নিউরো সার্জারি ও গাইনি জরুরি বিভাগ খোলা থাকে।’

তিনি বলেন, খুব শিগগিরই বিএসএমএমইউ-এর জেনারেল ইমারজেন্সি চালু হবে। তখন সব ধরনের রোগী জরুরি চিকিৎসা পাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সৌজন্যে : জাগোনিউজ।

আপনার মন্তব্য লিখুন :

আরও পড়ুন :

সংবাদটি শেয়ার করুন :