আজ বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০১৯, ০৭:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
«» ” উৎসর্গ ফাউন্ডেশন, শ্যামলী ম্যাটস শাখার পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতা “ «» “উৎসর্গ ফাউন্ডেশ, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবী মিলনমেলা রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ৩০শে জুন “ «» ব্যথানাশক ঔষুধ ছাড়াই বিকল্প ম্যাজিক পেইন কিলার! «» বাংলাদেশের বাজারে মেয়াদোত্তীর্ণ সব ওষুধ এক মাসের মধ্যে ধ্বংস করার আদেশ দিয়েছে আদালত «» নিজের চেম্বার নেই : রকে বসে প্রতিদিন শত রোগী দেখেন গরীবের ডাক্তার «» আমি এসেছি বাংলাদেশ থেকে বিদেশে রোগী যাওয়া বন্ধ করতে : ডা. দেবী শেঠী «» চিকিৎসকদের সুরক্ষায় কড়া আইন করছে ভারত : হাসপাতালে বিশেষ নিরাপত্তাবলয় «» রেশম দিয়ে কৃত্রিম ধমনি : যুগান্তকারী আবিষ্কার বাঙালি চিকিৎসক-গবেষকদের «» নিজের টাকায় শিশুদের জীবন দান করা ডা. কফিল খান বকেয়া বেতনও পাচ্ছেন না «» ডাক্তারদের আত্মরক্ষা আন্দোলনের জেরে হাসপাতালগুলো এবার পুলিশি সুরক্ষা পেল

ডিএমএফ ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ যেভাবে স্নাতক, মাস্টার্স ‘এমপিএইচ’ ডিগ্রি করবেন

 

প্রথমেই বলে নেই, মাস্টার্স অব পাবলিক হেলথ্ এম.পি.এইচ ডিগ্রি সম্বন্ধে:

MPH (Master of Public Health) একটি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মাস্টার্স ডিগ্রি। এই মাস্টার্স ডিগ্রিটা বাংলাদেশের বিভিন্ন পাবলিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়িয়ে থাকে।
এই ডিগ্রিটা করার জন্য প্রার্থীকে ন্যূনতম স্নাতক ডিগ্রি/ অনার্স সমমান পাশ হতে হয়। পাবলিক ভার্সিটির মধ্যে বিএসএমএমইউ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়- কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালে এই এমপিএইচ কোর্স রয়েছে। অপরপক্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাচেলর অব পাবলিক হেলথ্ এন্ড ইনফরমেটিক্স বিপিএইচআই ডিগ্রি রেয়েছে। এই ভার্সিটি খুব শিঘ্রই এমপিএইচ ডিগ্রি চালু করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ও এমপিএইচ ডিগ্রি পরিচালনা করে থাকে। পূর্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অব পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মেডিকেল সায়েন্সস এন্ড রিসার্চ এমপিএইচ ডিগ্রি টা চালু করেছিল, বর্তমানে সেটা বন্ধ আছে। তবে শিঘ্রই এখানে আবার কোর্স টা চালু করবে বলে ঢাকা ভার্সিটি কর্তৃপক্ষ সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন।

এর বাইরেও বাংলাদেশ সরকার ও ইউজিসি অনুমোদিত প্রথম ক্যাটাগরির প্রায় ২২ টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এমপিএইচ ডিগ্রি কোর্স পরিচালনা করে।

 

★যেভাবে বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল বিএম&ডিসি নিবন্ধিত ডিএমএফ ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ প্রথমে স্নাতক অনার্স/ ডিগ্রি করবেন★

পূর্বে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল ফ্যাকাল্টি ‘ডিএমএফ’ ডিপ্লোমা ডিগ্রি পাশ করেও এদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ডিগ্রি / অনার্স কোর্স করার সুযোগ ছিল না। এখন দেশের ৩ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সহ ১২/১৫ টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ডিএমএফ ধারীদের বেসিক মেডিকেল সায়েন্স, এ্যালাইড হেলথ্ সায়েন্স, মেডিকেল লাইফ সায়েন্স, পাবলিক হেলথ্ সহ সাধারণ শিক্ষা, আইন শাস্ত্রে স্নাতক ডিগ্রি / অনার্স কোর্স করার সুযোগ দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, পূর্বে অনেক ‘ডিএমএফ’ পাশ ডিপ্লোমা চিকিৎসক সরকারি চাকরিজীবী উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সিনিয়রগণ যাঁরা সাধারণ শিক্ষায় স্নাতক ডিগ্রি / অনার্স কোর্স পাশ করেছিলেন, তাঁরা ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব প্রিভেন্টিভ এন্ড সোশ্যাল মেডিসিন (নিপসম) প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ঢাকা ভার্সিটি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভার্সিটি বিএসএমএমইউতে সরকারি ভাবে এমপিএইচ করার সুযোগ পেতেন। বর্তমানে সেই সুযোগও বন্ধ হয়ে গেছে বলে শোনা যাচ্ছে। তবে আবেদন ও তদবির করলে নিপসমের মাধ্যমে ঢাকা ভার্সিটি, বিএসএমএমইউতে আবার সেই সুযোগটি তৈরি করা সম্ভব।

 

★ ঢাকা, রংপুর, দিনাজপুর, সিরাজগঞ্জ, চুয়াডাঙ্গা সহ অনেক জেলা শহরের পাবলিক/ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিম্নোক্ত বিষয়ে ব্যাচেলর অনার্স/ ডিগ্রি কোর্স গুলোতে ডিএমএফ পাশকৃতরা ভর্তি হতে পারবেন★

(1)- BS in Biochemistry (Hon’s)
(2)- BS in Microbioloy (Hon’s)
(3)- BS in Biochemistry & Cell Biology (Hon’s)
(4)- BS in Microbiology and Immunology (Hon’s)

(5)- Bachelor of Public Health BPH Hon’s
★Community Nutrition ★Health Promotion & Health Education ★Reproductive & Child Health ★Occupational Health & Safety ★Environmental Health & Safety ★Epidemiology and Biostatistics

(6)- BSc in Public Health Nutrition (Hon’s)
(7)- BSc in Food Science & Technology (Hon’s)

(8)-Bachelor of Social Science (BSS) Hon’s/ Degree

(9)-Bachelor of Arts (BA) Hon’s/ Degree
(10)- Bachelor of Science Certificate BSC Hon’s/ Degree

(11)- Bachelor of Business Administration BBA Hon’s/ Degree
(12)- Bachelor of Law LL.B Hon’s

★ নিম্নলিখিত বিশ্ববিদ্যালয় সমূহে উপরোক্ত স্নাতক ডিগ্রি/ অনার্স কোর্স করা যায়ঃ ★
1. Government College/ Private College (only private Bachelor Degree program)
National University affiliated.

2. Bangladesh Open University.
3. International Institute of Applied Science & Technology (IIAST), Rangpur. Anowara College of Bioscience, Dinajpur. Henry Institute of Bioscience, Sirajganj. (Rajshahi University affiliated).

4. Bangladesh University of Health Science (BUHS), Dhaka.

5. Primeasia University (PAU), Dhaka.
6. Khaja Yunus Ali University (KYAU), Sirajganj.
7. First Capital University of Bangladesh (FCUB), Chuadanga.

★ আরো কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এডমিশন ইকু্ইভেলেন্স কমিটির সাথে ব্যক্তিগত/ দলীয় ভাবে যোগাযোগ করে ডিএমএফ পাশকৃতরা ব্যাচেলর অনার্স/ ডিগ্রি কোর্সে ভর্তি হতে পারবেন।
এক্ষেত্রে রেফারেন্স দিতে হবে, যেহেতু উপরোক্ত পাবলিক/ বেসরকারি ভার্সিটি ডিএমএফ ডিপ্লোমা ডিগ্রিধারীদের স্নাতক ডিগ্রি/ অনার্স কোর্সে ভর্তির সুযোগ দিচ্ছে, তাই তাঁদের ( যে ভার্সিটির সাথে ব্যক্তিগত/ দলীয় যোগাযোগ করা হবে ) ভার্সিটিতেও এই সুযোগটি বিনা বাক্য ব্যয়ে দেয়া উচিত। ★

★ এখন কোনো ডিপ্লোমা চিকিৎসক হয়তো বলে উঠবেন, ‘বিএম&ডিসি স্বীকৃত ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা পাশ করে জেনারেল, এ্যালায়েড হেলথ্, মেডিকেল লাইফ সায়েন্সেস, পাবলিক হেলথ্ সহ অন্যান্য বিষয়ে স্নাতক সমমান করব কেন, আমাদের বিএম&ডিসি স্বীকৃত স্নাতক ‘এমবিবিএস’ অর্জন করা দরকার।’ আমি আপনার সাথে ১০০% একমত। অদৃশ্য এক অপশক্তি আপনাদের স্নাতক ‘এমবিবিএস’ অর্জন করার সাংবিধানিক মৌলিক অধিকারের সুযোগটা বন্ধ করে রেখেছে। যেটা পূর্বে ১৯৬০-১৯৭২ সাল পর্যন্ত ব্রিটিশ- পাকিস্তান পিরিয়ডের মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল নিবন্ধিত লাইসেন্সশিয়েট অব মেডিকেল ফ্যাকাল্টি এলএমএফ, মেম্বার অব মেডিকেল ফ্যাকাল্টি এমএমএফ সমমান ডিপ্লোমাধারী ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ এদেশে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে (প্রাক্তন ঢাকা মেডিকেল স্কুল) কনডেন্স কোর্সে স্নাতক এমবিবিএস ডিগ্রি অর্জন করার সুযোগ পেয়েছিলেন। তৎকালীন সময়ে এলএমএফ, এমএমএফ ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ উপমহাদেশের সবগুলো অঙ্গরাজ্যে এমবিবিএস ডিগ্রি অর্জন করার সুযোগ পেয়েছিলেন। ওই সুযোগটা তো এই মূহুর্তে পাচ্ছেন না। এখন যেটা করার সুযোগ পাচ্ছেন সেটাই আপাতত করুন। পরে এমবিবিএস এডমিশন টেস্ট দেয়ার অধিকার পেলে দেবেন। চান্স পেলে এমবিবিএস করবেন। কেন, ‘মাঝে মাঝে ক্ষুধা লাগলে আপনি ভাতের বিকল্প অন্য কিছু যেমন; চিড়া, মুড়ি, মুড়কি বা অন্য কিছু না কিছু তো আপনি খান…? তাই না…? তবে বিকল্প উচ্চশিক্ষা আপনি কেন করবেন না…?’
ধরে নিন, একদিন আপনি এমবিবিএস এডমিশন টেস্ট দেয়ার সুযোগ পেলেন, তখন হয়তো আপনার পড়ালেখা করার বয়সই থাকল না! আপনি বাদে জুনিয়র ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ হয়তো সে সুযোগটা কাজে লাগাতে পারবেন। এটাই ধ্রুব সত্য কথা। ★

Master of Public Health (MPH)
চাকরির ক্ষেত্র সমূহ:

★ সরকারিভাবে এডমিনিস্ট্রেটিভ সেক্টরে, পাবলিক হেলথ, কমিউনিটি মেডিসিন ইত্যাদি সেক্টরে কাজ করা যায়।
★ বেসরকারিভাবে WHO, icddrb, BRAC, USAID, UNICEF, UN, UChigao, OGSB, Damien foundation, CIPRB, ORBIS, Water Aid, ORBIS, Save the Children, Sight Savers International ইত্যাদি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠন থেকে শুরু করে দেশি বিদেশি অজস্র NGO, রিসার্চ সেন্টারে কাজ করার অনেক সুযোগ রয়েছে।
★ বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ্ ডিপার্টমেন্টে শিক্ষকতা সহ বেসরকারী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ্ ডিপার্টমেন্টে শিক্ষকতা করা যায়। এছাড়াও বিদেশেও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ্ ডিপার্টমেন্টে শিক্ষকতা করা যায়।
★ বেসরকারী ম্যাটস্, নার্সিং, আইএইচটি, হেলথ্ রিলেটেড বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করা যায় (যদি আপনার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পূর্বে ডিপ্লোমা ডিগ্রি করা করা থাকে)।
★ দেশের বাইরে কিংবা দেশে মেডিকেল- ডেন্টাল একাডেমিক লাইনে যেমন; কমিউনিটি মেডিসিন/ প্রিভেনটিভ ডেন্টিস্ট্রীর শিক্ষক (এমবিবিএস/ বিডিএস’দের ক্ষেত্রে) হওয়া যায়।
★ একাডেমিক রিসার্চার বা রিসার্চ এসিস্টেন্ট হিসেবে কাজ করা যায়।
★ হসপিটাল এডমিনিস্ট্রেটর, ডিরেক্টর, ম্যানেজার, ইত্যাদি এডমিনিস্ট্রেটিভ চাকরি করা যায়।
★ দাতা সংস্থার অর্থে পরিচালিত বিভিন্ন সরকারি বেসকারি প্রজেক্টে কন্ট্রাক্ট ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া যায়।
★ রিসার্চ সায়েন্টিস্ট হওয়া যায়।
★ এপিডেমিওলজিস্ট, হেলথ রিসোর্স প্ল্যানিং, হেলথ ইকোনমিস্ট ইত্যাদি পদে চাকরি করা যায়।
★ বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একাডেমিক ও হাসপাতাল সেক্টরে এডমিনিস্ট্রেটর, ডিরেক্টর, ম্যানেজার হওয়া যায়।
★ প্রথম শ্রেণীর সরকারি চাকরিতে যে সকল ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতকোত্তর সমমান ডিগ্রি চাওয়া হয়, সে সকল পদে এমপিএইচ মাস্টার্স ডিগ্রিধারীরাও চাকরি করতে পারবেন।
★ সরকারি/ বেসরকারি চাকরিতে হেলথ্ এডুকেশন অফিসার, সিনিয়র হেলথ্ এডুকেশন অফিসার, পাবলিক হেলথ্ অফিসার, হেলথ্ প্রধান, হেলথ্ ডিরেক্টর, পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট পদে নিয়োগ পাওয়া যায়।
★ MPH করার পর পাবলিক সার্ভিস কমিশনের আন্ডারে বিসিএস পরীক্ষা দেয়া যায়। অবশ্য যে কোনো বিষয়ে ৪ বছর মেয়াদী স্নাতক ডিগ্রি/ অনার্স করেও বিসিএস পরীক্ষা দেয়া যায়। আবার যে কোনো বিষয়ে মাস্টার্স করেও বিসিএস পরীক্ষা দেয়া যায়।
★ এমপিএইচ প্রফেশনাল পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি করে নামের আগে বা পরে টাইটেল/ উপাধি পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট/ জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ পরিচয় দেয়া/ ব্যবহার করা যায়। (যেমন টা অন্যান্য প্রফেশনালগণ ডাক্তার, নার্স, ইঞ্জিনিয়ার, কৃষিবিদ, সাংবাদিক, ফিজিওথেরাপিস্ট, ফার্মাসিস্ট, বায়োকেমিস্ট, মাইক্রোবায়োলজিস্ট, ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট, হেলথ্ ইকোনমিস্ট, ইকোনমিস্ট, এপিডেমিওলজিস্ট, এন্থ্রোপলজিস্ট, এন্টোমলজিস্ট, অকুপেশনাল থেরাপিস্ট, স্পীচ এন্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, কার্ডিওলজিস্ট, ডায়বেটিওলজিস্ট, সার্জারি স্পেশ্যালিস্ট, মেডিসিন স্পেশ্যালিস্ট, ইএনটি স্পেশ্যালিস্ট, অবস্ এন্ড গাইনি স্পেশ্যালিস্ট, আই স্পেশ্যালিস্ট প্রভৃতিগণ ব্যবহার করেন)। কোনো স্বীকৃত বিষয়ে স্পেশ্যালাইজেশন বা পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন ডিগ্রি অর্জন ব্যতীত কোনো ব্যক্তি নিজেকে স্পেশ্যালিস্ট-বিশেষজ্ঞ পরিচয় দেয়ার যোগ্যতা বা অধিকার রাখেন না। ইন্টারন্যাশনাল কমন জুরিসপ্রুডেন্স, মেডিকেল জুরিসপ্রুডেন্স ও পাবলিক হেলথ্ জুরিসপ্রুডেন্সে তাই বলা আছে। তবে পাবলিক হেলথ্ সায়েন্সে গ্র্যাজুয়েট- স্নাতক ডিগ্রি সমমান ধারীরা জনস্বাস্থ্যবিদ উপাধি পরিচয় দেয়ার কিংবা ব্যবহার করার অধিকার রাখেন।
★ এমপিএইচ করে পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ পিএইচএসএবি, ইন্টারন্যাশনাল পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট এসোসিয়েশন আইপিএইচএসএ সহ অন্যান্য দেশের
পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট এসোসিয়েশনের সদস্য হওয়া যায়।

FAQ (Frequently Asked Question)
★ নিপসম, মেডিকেল কলেজ ছাড়া তো অন্য কোন প্রতিষ্ঠানের এমপিএইচ BM&DC স্বীকৃত না, তাহলে এটা করে কি দেশে সরকারি/ বেসরকারি চাকরি পাওয়া যাবে…?
– হ্যাঁ যাবে, সরকারি চাকরিতে এটা কেবল তখনি কাজে লাগবে যখন শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সমমান কিংবা MPH চাওয়া হবে। এই ডিগ্রি করার পর কেউ যদি ডক্টরেট ডিগ্রি Doctor of Philosophy PhD/ DrPH Doctor of Public Health অর্জন করে সেটার স্বীকৃতিও পাওয়া যাবে। আর বেসরকারি যেকোন প্রতিষ্ঠানেই এই এমপিএইচ ডিগ্রিকে রিকগনিশন দেবে বিনা বাক্য ব্যয়ে। আরেকটি কথা নিপসম প্রতিষ্ঠানের কেবল তাঁদের এমপিএইচ ডিগ্রির বিএম&ডিসি স্বীকৃতি দেয়, যাঁরা মেডিকেল/ ডেন্টাল গ্র্যাজুয়েট এবং বিএম&ডিসি নিবন্ধিত। নন মেডিকেল গ্র্যাজুয়েট/ অল্টারনেটিভ মেডিকেল গ্র্যাজুয়েট/ এ্যালাইড হেলথ্ গ্র্যাজুয়েট প্রভৃতিগণ নিপসমে এমপিএইচ করলেও বিএম&ডিসি তাঁদের ডিগ্রি নিবন্ধিত করে না।

★ এমপিএইচ ডিগ্রির বিএম&ডিসি স্বীকৃতি কাদের দরকার হয়, আর কাদের দরকার হয় না..?
– বিএম&ডিসি’র অধীনে ডিপার্টমেন্টাল পদোন্নতিতে কেবল বিএম&ডিসি’র স্বীকৃতি দরকার হয়। অন্য ডিপার্টমেন্টে, পরিদপ্তরে, অধিদপ্তরে, মন্ত্রণালয়ে কিংবা বিদেশী সংস্থায় চাকরিতে এমপিএইচ ডিগ্রির বিএম&ডিসি’র স্বীকৃতির প্রয়োজন পড়ে না।

★ বাংলাদেশের MPH কি বিদেশে স্বীকৃত…?
– গভঃ ও ইউজিসি অনুমোদিত বাংলাদেশের যেকোন ভার্সিটি/ প্রতিষ্ঠানের এমপিএইচ ডিগ্রি বিদেশে স্বীকৃত বলে বিবেচিত হবে। যেমনটি বিদেশের গভঃ ও ইউজিসি অনুমোদিত ভার্সিটি/ প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রি আমাদের দেশে স্বীকৃত।
– এমপিএইচ করে PhD/ DrPH এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন এদেশে কিংবা বিদেশের যেকোন দেশে। পাবলিক হেলথ্ যেহেতু মাল্টিডিসিপ্লিনারি ও ইন্টারন্যাশনাল ডিগ্রি তাই এর চাহিদা বিশ্বের যে কোন দেশেই ব্যাপক। বলতে গেলে পৃথিবীর যে কোন দেশের পাবলিক হেলথ্ সেক্টরে বাংলাদেশের ‘এমপিএইচ’ ডিগ্রি কাজে লাগানো সম্ভব।

★ পাবলিক হেলথ্ সায়েন্সে দেশে, বিদেশে কোথায় কোথায় ডক্টরেট ডিগ্রি DrPH/ PHD করা যায়…?
– বাংলাদেশে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়- কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালে পাবলিক হেলথ্ সায়েন্সে M.Phil/ PHD ডিগ্রি করার ব্যবস্থা আছে। ঢাকা ভার্সিটি ও জাহাঙ্গীরনগর ভার্সিটির কিছু ডিপার্টমেন্টে পাবলিক হেলথ্ সায়েন্স রিলেটেড বিষয়ে M.Phil/ PHD ডিগ্রি করা সম্ভব। বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষও পাবলিক হেলথ্ সায়েন্সে রিসার্চ ডিগ্রি কোর্স PHD চালু করার বিষয়ে সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন।
বিদেশের যে কোন দেশে পাবলিক হেলথ্ সায়েন্সে রিসার্চ ডিগ্রি PHD/DrPH করা যাবে। এক্ষেত্রে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, পাবলিকেশন, জার্নাল, ক্ষেত্রে বিশেষে IELTS, GRE ইত্যাদি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দেশের বাহিরে স্কলারশিপসহ বা ছাড়া PHD/DrPH রিসার্চ ডিগ্রি করার দু’টি পদ্ধতিই চালু রয়েছে।

 

লেখক : ডা. এম. মিজানুর রহমান

এক্স; তথ্য, গবেষণা ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ সম্পাদক, বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিডিএমএ), কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ।
সাংগঠনিক সম্পাদক,
পাবলিক হেলথ্ স্পেশ্যালিস্ট এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (পিএইচএসএবি), কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ।

সংবাদটি শেয়ার করুন :