আজ সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন,

যেহেতু কারিগরির কোর্স কারিকুলাম ত্রুটিপূর্ণ এবং অবৈধ সেহেতু সেখান থেকে পাস করা মেডিকেল টেকনোলজিস্টরাই অবৈধ

সংগ্রামী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট ভাই ও বোনেরা, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ কারিগরি বোর্ডকে বলেছেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোর্স কারিকুলাম অনুযায়ী মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স পরিচালনা করতে। এর দ্বারা এটা প্রমাণিত হয় যে, তাদের বতর্মান মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স কারিকুলাম WHO কারিকুলাম অনুযায়ী স্বীকৃত না।তাদের কোর্স কারিকুলাম নিয়মনীতি বহির্ভূত, ত্রুটিপূর্ণ এবং অবৈধ।

আর সেই নিয়মনীতি বহির্ভূত, ত্রুটিপূর্ণ এবং অবৈধ মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স থেকে পাস করা ছাত্ররা কিভাবে বৈধ  মেডিকেল টেকনোলজিস্ট হবে??? আপিল বিভাগ কিভাবে এই ত্রুটিপূর্ণ কারিকুলামে লেখা-পড়া করা ব্যক্তিদের সমঅধিকার দিলেন??? এটা কি প্রহসন নয়??? এই রায় আমরা মানিনা। এই রায় মেনে নিয়ে আমরা দেশের ১৭ কোটি মানুষের সাথে প্রতারণা করতে পারিনা। দেশের স্বাস্থ্যখাতের গুরুত্বপূর্ণ রোগনির্ণয় সেক্টরকে রসাতলে নিমজ্জিত হতে দিতে পারিনা।

মেডিকেল টেকনোলজিস্ট জাতির ক্রান্তিলগ্নে সকল মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের মনোবল শক্ত রাখতে হবে। আমরা সবাই সকলের  সম্মিলিত, স্বতঃস্ফূর্ত সুপরামর্শে একত্রিত হয়ে সামনে এগিয়ে যাবো।কোনো প্রকারেই সায়েন্স বিহীন আনারী, অদক্ষ কারিগরির মেডিকেল টেকনিশিয়ানদের স্বাস্থ্যখাতে অনুপ্রবেশ করতে দিবোনা।  কারিগরির থাবা থেকে স্বাস্থ্যখাতকে রক্ষা করবোই। সবাই সাথে থাকবেন।

কেউ আইনের উর্দ্ধে নয়।আর জোর করে কেউ কারো প্রাপ্য অধিকার ছিনিয়ে নিতে পারেনা।যেটা মিথ্যা, যেটা অবৈধ সেটা কোনোদিন সত্য বা বৈধ হতে পারেনা। বিশ্বের এমন কোনো দেশ নেই যে মেডিকেল সায়েন্স আর্টস, কমার্স এর ছেলে-মেয়েরা পড়ছে। মেডিকেল সায়েন্স পড়তে সায়েন্স বাধ্যতামূলক তা চিরাচরিত প্রথা।সেই প্রথাকে কেউ উপেক্ষা করতে পারবেনা।কারিগরি শিক্ষাবোর্ডও না।

আরও পড়ুন :  কৃতজ্ঞতা আনলিমিটেড- ১

মামলা পরিচালনাকারীরা আবারো মামলাটি রিভিও পিটিশন করবে। তাতেও যদি রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের প্রাপ্য অধিকার আদায় না হয় আমরা আন্তর্জাতিক আদালতে আপিল করবো। তারপরেও সম্মানের সাথে মেডিকেল টেকনোলজি পেশাকে রক্ষা করবো, দেশের মানুষের নিরাপদ রোগনির্ণয় সেবা পাওয়ার অধিকার নিশ্চিৎ করবো। সত্যের জয় হবেই। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। ধন্যবাদ সবাইকে।

আশীষ শীল শ্রাবণ
প্রতিনিধি(এডমিন), বিএমটিপি, চট্টগ্রাম।

আপনার মন্তব্য লিখুন :

আরও পড়ুন :

সংবাদটি শেয়ার করুন :