আজ সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন,

বিএমডিসি’র ওয়েবসাইটের তালিকায় নেই ডিপ্লোমা চিকিৎসকরা

ডা. চন্দন দাস :

প্রায় তিন বছর আগে ভুয়া চিকিৎসকদের তৎপরতা বন্ধ করা এবং চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থাকে ডিজিটালাইজড্ করার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষ চিকিৎসকদের সনাক্তকরণের জন্য ডিজিটালাইজড্ ওয়েব সাইট (http://bmdc.org.bd/doctors-info) তৈরি করেছেন।

উক্ত সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে নিবন্ধিত চিকিৎসকের নাম্বার দিয়ে সার্চ করলে চিকিৎসক সঠিক কিনা তা যে কেউ জেনে নিতে পারেন। ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণে প্রায় ৮০ হাজার মেডিকেল চিকিৎসক ও প্রায় ৬ হাজার ৮ শত ডেন্টাল চিকিৎসকের ছবি, নাম, ঠিকানা ও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার প্রকাশ করা হয়েছে কিন্তু স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় অনুমোদিত, বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ অধিভুক্ত ও বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল  নিবন্ধিত হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি সন্তান বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু সরকারের প্রথম-পঞ্চ বার্ষিকী পরিকল্পনা মোতাবেক সৃষ্ট মধ্যম মানের চিকিৎসক ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল ফ্যাকাল্টি (ডিএমএফ) ডিপ্লোমা ডিগ্রিধারী ১৫ হাজার ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের ছবি, নাম, ঠিকানা ও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার উক্ত ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হয় নাই। ফলে বিএমডিসি নিবন্ধিত ডিপ্লোমা চিকিৎসকরা কর্মক্ষেত্রে নানা ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছেন।

কিছুদিন আগে দিরাই, সুনামগঞ্জ জেলায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট একজন নিবন্ধিত ডিপ্লোমা চিকিৎসকের প্রাইভেট চেম্বারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। উক্ত ডিপ্লোমা চিকিৎসক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট বিএমডিসি কর্তৃক প্রদত্ত পেশাদার ডিপ্লোমা চিকিৎসকের রেজিস্ট্রেশন সনদ প্রদান করলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সনদের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য বিএমডিসি ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে সার্চ দেন। ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে তার তথ্য ও বিবরণ না থাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাকে ভুয়া চিকিৎসক ভেবে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করেন। পরবর্তীতে ঐ ডিপ্লোমা চিকিৎসক জেলা ও দায়রা জজ আদালত সুনামগঞ্জ বরাবার রায় রিভিউয়ের আবেদন করে দুই বছর পর তার জরিমানার টাকা ফেরত পান।

আরও পড়ুন :  ইন্টার্ন চিকিৎসকদের আন্দোলনের সাথে চিকিৎসক সমাজের ঐক্যমত পোষণ

সাম্প্রতিক চাটমোহর, পাবনা জেলায় একই ভাবে কামরুল হাসান নামের একজন নিবন্ধিত ডিপ্লোমা চিকিৎসক কে একই কারণে একলক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানার টাকা সাথে সাথে না দেয়ায় নির্বাহী  ম্যাজিস্ট্রেট ডিপ্লোমা চিকিৎসক কামরুল হাসান কে আটক নিবাসে নিয়ে যান। পরে জরিমানার টাকা প্রদান করলে রাতে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

তবে, ডিপ্লোমা চিকিৎসক কামরুল হাসান  ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল এসোসিয়েশন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের পরামর্শে ভ্রাম্যমান আদালতের ভুল রায় রিভিউয়ের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালত পাবনা বরাবর আবেদন করেছেন।

উপরোক্ত দু’টি ঘটনায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকারী দু’জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন, যেহুতু ডিপ্লোমা চিকিৎসকরা বিএমডিসি নিবন্ধিত কাজেই তাদের তথ্য ও বিবরণ ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে দেয়া অত্যন্ত জরুরী। তা করা না হলে, আবারও হয়তো কোনো না কোনো ডিপ্লোমা চিকিৎসক ভুল করে একই সমস্যায় পরবেন।

এমতাবস্থায় বিএমডিসি নিবন্ধিত সকল ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের ছবি, নাম, ঠিকানা ও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার তৈরি কৃত ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ ওয়েব সাইটে অতিশীঘ্রই দেয়ার জন্য হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি সন্তান বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বাস্থ্য মন্ত্রী ও স্বাস্থ্য সচিব সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।

নিবেদক,
ডা. চন্দন দাস
ডিএমএফ (বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ)
বিএম & ডিসি রেজি: নং: ডি-৬২১২

আপনার মন্তব্য লিখুন :

আরও পড়ুন :

সংবাদটি শেয়ার করুন :