আজ বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০১৯, ০৭:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
«» ” উৎসর্গ ফাউন্ডেশন, শ্যামলী ম্যাটস শাখার পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতা “ «» “উৎসর্গ ফাউন্ডেশ, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবী মিলনমেলা রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ৩০শে জুন “ «» ব্যথানাশক ঔষুধ ছাড়াই বিকল্প ম্যাজিক পেইন কিলার! «» বাংলাদেশের বাজারে মেয়াদোত্তীর্ণ সব ওষুধ এক মাসের মধ্যে ধ্বংস করার আদেশ দিয়েছে আদালত «» নিজের চেম্বার নেই : রকে বসে প্রতিদিন শত রোগী দেখেন গরীবের ডাক্তার «» আমি এসেছি বাংলাদেশ থেকে বিদেশে রোগী যাওয়া বন্ধ করতে : ডা. দেবী শেঠী «» চিকিৎসকদের সুরক্ষায় কড়া আইন করছে ভারত : হাসপাতালে বিশেষ নিরাপত্তাবলয় «» রেশম দিয়ে কৃত্রিম ধমনি : যুগান্তকারী আবিষ্কার বাঙালি চিকিৎসক-গবেষকদের «» নিজের টাকায় শিশুদের জীবন দান করা ডা. কফিল খান বকেয়া বেতনও পাচ্ছেন না «» ডাক্তারদের আত্মরক্ষা আন্দোলনের জেরে হাসপাতালগুলো এবার পুলিশি সুরক্ষা পেল

কান্সারে আক্রান্ত শিশুদের মুখে হাসি ফুটাচ্ছে নওশাবা

নিউজ ডেস্কঃ

পথশিশু, প্রতিবন্ধি, অবহেলিত এতিম ও ক্যান্সার আক্রান্তসহ যেকোনও সমাজসেবামূলক কাজে পাশে থাকেন অভিনেত্রী কাজী নওশাবা। সেই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার বাংলামোটরের জহুরা স্কয়ারের ৭ম তলায় অবস্থিত ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের জন্যে প্রতিষ্ঠিত ‘আশিক শেল্টার’র শিশুদের সাথে সময় কাটালেন নওশাবা।

সঙ্গে ছিলেন আরেক অভিনেতা অমিত সিনহা ও নওশাবার মেয়ে প্রকৃতি।
আশিক শেল্টারের প্রতিষ্ঠাতা জনাবা সালমা। তাঁর ছেলে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যাবার পর এটি প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি সবসময় অনাথ ও ক্যান্সারে আক্রান্ত্ম শিশুদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসেন, তাদের খাইয়ে-চিকিৎসা দিতে তৃপ্তিবোধ করেন।

এদিকে নওশবা বলেন, ‘আমি শিশুদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসি। আমার পক্ষে যতটুকু সামর্থ্য, তা দিয়েই ওদের মুখে হাসি ফোটাতে চেষ্টা করি। আজ নিজের দায়বদ্ধতা এসেছি। প্রতিটি শিশুর চোখে-মুখে যে হাসির ঝিলিক দেখেছি তা অকৃত্রিম। সবারই এদের পাশে এগিয়ে আসা উচিত।

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :