আজ বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০১৯, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
«» ” উৎসর্গ ফাউন্ডেশন, শ্যামলী ম্যাটস শাখার পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতা “ «» “উৎসর্গ ফাউন্ডেশ, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবী মিলনমেলা রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ৩০শে জুন “ «» ব্যথানাশক ঔষুধ ছাড়াই বিকল্প ম্যাজিক পেইন কিলার! «» বাংলাদেশের বাজারে মেয়াদোত্তীর্ণ সব ওষুধ এক মাসের মধ্যে ধ্বংস করার আদেশ দিয়েছে আদালত «» নিজের চেম্বার নেই : রকে বসে প্রতিদিন শত রোগী দেখেন গরীবের ডাক্তার «» আমি এসেছি বাংলাদেশ থেকে বিদেশে রোগী যাওয়া বন্ধ করতে : ডা. দেবী শেঠী «» চিকিৎসকদের সুরক্ষায় কড়া আইন করছে ভারত : হাসপাতালে বিশেষ নিরাপত্তাবলয় «» রেশম দিয়ে কৃত্রিম ধমনি : যুগান্তকারী আবিষ্কার বাঙালি চিকিৎসক-গবেষকদের «» নিজের টাকায় শিশুদের জীবন দান করা ডা. কফিল খান বকেয়া বেতনও পাচ্ছেন না «» ডাক্তারদের আত্মরক্ষা আন্দোলনের জেরে হাসপাতালগুলো এবার পুলিশি সুরক্ষা পেল

রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা

রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ফার্মেসিগুলোতে কোনো ধরণে অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রয় ও বিতরণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ওষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। গত ৩০ মে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তারা।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমানের পাঠানো ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মালিকদের কঠোরভাবে অনুরসণ করার জন্য বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের (MBBS/BDS/DMF) পরামর্শ ছাড়া নিম্নমানের এবং ভুল অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ সেবন এবং এই অভ্যাস দীর্ঘদিন অব্যাহত রাখার কারণে মানবদেহে
অ্যান্টিবায়োটিকের রোগ সৃষ্টিকারী ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করার ক্ষমতা কমে যাচ্ছে। পাশাপাশি অকার্যকর হয়ে যাচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক, যা স্বাস্থ্যখাতের সকলের জন্য রীতিমত আতঙ্কের বিষয়।

এ অবস্থায় জীবন রক্ষায় রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ বা প্রেসক্রিপশন ছাড়া কোনো প্রকার অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কিছু হলেই ইচ্ছেমতো অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ না করে শারীরিক পরিচ্ছন্নতার প্রতি জোর দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। একই সঙ্গে অ্যান্টিবায়োটিকের ডোজ পূর্ণ করার কথা বলা হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় সরকারের তরফ থেকে এ উদ্যোগ এলো।

►বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে ক্লিক করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :